উলিপুরে পূর্ব শত্রুতার জেরে প্রতিবন্ধীকে কুপিয়ে আহত করার অভিযোগ।

আসলাম উদ্দীন (উলিপুর)কুড়িগ্রাম
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  09:27 PM, 17 November 2020

কুড়িগ্রামের উলিপুরে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে গীরেন্দ্র নাথ (৬০) নামে এক শ্রবন
প্রতিবন্ধীকে কুপিয়ে গুরুত্বর আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনার সময় আহতের
বাড়ি ঘরে হামলা চালিয়ে ক্ষতিসাধন করা হয়। এদিকে গুরুত্বর আহত ওই প্রতিবন্ধীকে উপজেলা
স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য কুড়িগ্রাম সদর
হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে, মঙ্গলবার (১৭ নভেম্বর) সকালে দক্ষিন মধুপুর
সাতকুড়ার পাড় হিন্দুপাড়া গ্রামে।
আহতের পরিবার ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ধরনীবাড়ী ইউনিয়নের দক্ষিন
মধুপুর সাতকুড়ার পাড় হিন্দুপাড়া গ্রামের প্রতিবন্ধী গীরেন্দ্র নাথ বর্মনের পরিবারের
সাথে প্রতিবেশি সুশীল গংদের জমি-জমা নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে বিরোধ চলে আসছে। এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে আদালতে মামলা চলমান রয়েছে।
তারা আরও জানান, গত ১৫ নভেম্বর সুশীল গংদের পক্ষের স্থানীয় একাধিক মাদক মামলার আসামী সেকেন্দার আলী গীরেন্দ্র নাথের বড় ভাই ধীরেন্দ্র নাথ বর্মনকে (৬৫) কোন কারন ছাড়াই
মারপিট করে। এ সময় স্থানীয় কয়েকজন ঘটনার প্রতিবাদ করলে সুশীল গং প্রতিবাদকারীদের হুমকি ও গালিগালাজ করেন। এরই জের ধরে ঘটনার দিন মঙ্গলবার সকালে ওই এলাকায় একটি
চায়ের দোকানের সামনে সুশীলের ছোট ভাই সুনিলের সাথে প্রতিবাদকারীদের মধ্যে কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতি হয়।
এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সুশীলের নেতৃত্বে স্থানীয় আয়নালসহ কয়েকজন দূবর্ৃত্ত গীরেন্দ্র নাথের বাড়িতে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। বাড়ির লোকজন জীবন রক্ষার্থে
ঘরে ঢুকে আত্মচিৎকার করলে তাদের উঠানে থাকা একটি বাইসাইকেল লুট করে নিয়ে যায়। পরে গীরেন্দ্র নাথকে বাড়ির পাশ্ববর্তী জমিতে একা পেয়ে মারধর করে এবং রাম-দা দিয়ে হাতে ও
পায়ে কোপ মারে। এতে গীরেন্দ্র নাথ গুরুত্বর আহত হলে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। এ ঘটনায় এলাকায়
উত্তেজনা বিরাজ করছে। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে উভয় পক্ষকে শান্ত থাকার জন্য আহবান জানান।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকতা ডা. সুভাষ চন্দ্র সরকার জানান, গীরেন্দ্র নাথের অবস্থা গুরুত্বর হওয়ায় তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে।
উলিপুর থানার ওসি (তদন্ত) রুহুল আমীন বলেন, মারামারির খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো
হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :