নিরাপত্তা বেষ্টিত আদালতে বিচারক, রায় পড়া শুরু কিছুক্ষণের মধ্যেই

ডেস্ক রিপোর্ট
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  11:19 AM, 30 September 2020

দেশের বহুল আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যাকাণ্ডের রায় কিছুক্ষণের মধ্যেই। বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) সকালে বরগুনা জেলা দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আসাদুজ্জামান এ রায় ঘোষণা করবেন।

রায়ে কী সিদ্ধান্ত আসছে তা জানতে মূলত সেদিকেই সবার দৃষ্টি সবার। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রায় পড়া শুরু হতে পারে বলে জানা গেছে। এরই মধ্যেই আদালতে প্রবেশ করেছেন জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আছাদুজ্জামান।

এর আগে সকাল ৮টা ৫০ মিনিটে আইনজীবীর জামিনে থাকা রিফাতের স্ত্রী ও এ মামলার অন্যতম রহস্যময় আসামি আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি তার বাবা মোজাম্মেল হক কিশোরের মোটরসাইকেলে করে আদালত প্রাঙ্গণে এসেছেন।

এ মামলার রায়কে কেন্দ্র করে বরগুনার আদালত পাড়াসহ জেলা কারাগারের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। ভোর থেকে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। আদালত পাড়াকে ঘিরে স‌ড়কে যানবাহন চলাচলে নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা কার্যকর করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

এছাড়া আদাল‌ত চত্বরেও বিশেষ নিরাপত্তার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। পাশাপা‌শি কয়েক স্তরে পোশাকধারী ও ডি‌বি পু‌লিশের সদস্যরা ‌জেলা কারাগার, আদালত চত্বরসহ আশপাশে নিরাত্তায় নিয়োজিত রয়েছে।

প্রাপ্তবয়স্ক আসামিরা হলেন—রাকিবুল হাসান রিফাত ফরাজি (২৩), আল কাইউম ওরফে রাব্বি আকন (২১), মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত (১৯), রেজওয়ান আলী খান হৃদয় ওরফে টিকটক হৃদয় (২২), মো. হাসান (১৯), মো. মুসা (২২), আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি (১৯), রাফিউল ইসলাম রাব্বি (২০), মো. সাগর (১৯), ও কামরুল ইসলাম সাইমুন (২১)।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ২৬ জুন বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে নয়ন ও তার সহযোগী সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে রামদা দিয়ে কুপিয়ে রিফাত শরীফকে গুরুতর আহত করে। এরপর বীরদর্পে অস্ত্র উঁচিয়ে এলাকা ত্যাগ করে তারা। গুরুতর আহত রিফাত বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ওই দিনই মারা যান।

গত ১ সেপ্টেম্বর রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় রিফাতের স্ত্রী মিন্নিসহ ২৪ জনের বিরুদ্ধে বরগুনার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে দুই ভাগে বিভক্ত অভিযোগপত্র (চার্জশিট) দেয় পুলিশ। একইসঙ্গে রিফাত হত্যা মামলার এক নম্বর আসামি নয়ন বন্ড বন্দুকযুদ্ধে নিহত হওয়ায় তাকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

গত ১ জানুয়ারি রিফাত হত্যা মামলার প্রাপ্তবয়স্ক ১০ আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেন বরগুনার জেলা ও দায়রা জজ আদালত। অন্যদিকে, গত ৮ জানুয়ারি রিফাত হত্যা মামলার অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেন বরগুনার শিশু আদালত।

এ মামলার চার্জশিটভুক্ত প্রাপ্তবয়স্ক আসামি মো. মুসা এখনও পলাতক রয়েছেন। এছাড়াও নিহত রিফাতের স্ত্রী মিন্নিসহ অপ্রাপ্তবয়স্ক ৮ আসামি উচ্চ আদালত এবং বরগুনার শিশু আদালতের আদেশে জামিনে রয়েছেন।

আপনার মতামত লিখুন :